1. admin@crimenews24.net : cn24 :
  2. zpsakib@gmail.com : cnews24 :
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৩০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহীতে বিপুল পরিমাণ হেরোইনসহ গ্রেফতার-১ ভাষা শহীদদের প্রতি ইন্দুরকানী সাংবাদিক ইউনিয়নের শ্রদ্ধাঞ্জলি মৌলভীবাজারে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল মাতৃভাষা দিবসে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব মৌলভীবাজার জেলা শাখার শ্রদ্ধাঞ্জলি  বড়লেখায় তরুণীকে গ ণ ধ র্ষ ণের শিকার – প্রেমিকসহ জেলে-২ একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদের প্রতিকৃতিতে  চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের বিনম্র শ্রদ্ধা শুরু হলো পাঁচ দিনব্যাপী রাজশাহী বইমেলা  বই একটি সমৃদ্ধ জাতি এবং টেকসই ভবিষ্যৎ নির্মাণ করতে পারে-রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য  রাজশাহী হাই মাদরাসার পুকুর থেকে ভাঁসমান লাশ উদ্ধার ভিএস ও ভলেন্টেয়ারিং স্ট্যান্ডাড ইয়োথ ফোরাম খুলনা অঞ্চলের প্রশিক্ষন অনুষ্টিত

রাজশাহীতে মেয়র/চেয়ারম্যানের মহাতান্ডব

কাজী এনায়েত, রাজশাহী:
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০২৩
  • ৪৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

 

রাজশাহী জেলার মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভার মাসিক মিটিং এ ফাঁকা রেজুলেশন স্বাক্ষর না করায় ৫ কাউন্সিলরকে বহিষ্কারের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) ভোক্তভোগি ওই ৫ কাউন্সিলর রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভার মেয়র মো.শহিদুজ্জামান শহিদ প্রথম থেকে মাসিক মিটিং এ ফাঁকা রেজুলেশনে স্বাক্ষর নেয়। কারণ জানতে চাইলে মেয়র বলেন, এটাই তার নিয়ম। পরবর্তীতে ফেব্রুয়ার ও মার্চ মাসের মাসিক মিটিং এ স্বাক্ষর দিতে অস্বীকৃতি জানালে মেয়র মো. শহিদুজ্জামান শহিদ ৫ কাউন্সিলরকে বহিষ্কারের হুমকি প্রদান করেন।

এর আগে ওই ৫ কাউন্সিলর মেয়রের বিরুদ্ধে পৌরসভার বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়ম নিয়ে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল পৌরসভা পরিদর্শনকালে কাউন্সিলরদের পৌরসভার বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাইলে তারা জানান, মাসিক মিটিং এ মেয়র ফাঁকা রেজুলেশনে স্বাক্ষর করে নেয়। ওই সময় জেলা প্রশাসক মেয়রকে ফাঁকা রেজুলেশন স্বাক্ষর না নিতে নিষেধ করেন। পূর্ণাঙ্গ রেজুলেশন লিখার পর কাউন্সিলরদের স্বাক্ষরের নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু পরপর দু’মাসের মাসিক মিটিং এ ফাঁকা রেজুলেশন স্বাক্ষর না করায় গত ১৫ মার্চ মাসিক মিটিং এ পাঁচ কাউন্সিলরকে বহিষ্কারের হুমকি প্রদান করেন মেয়র।

এছাড়াও পৌরসভার একরামুল হক নামের এক কাউন্সিলর বাদি হয়ে মেয়রের বিরুদ্ধে ১৭ কোটি টাকার অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে কেশরহাট পৌরসভার মেয়র শহিদুজ্জামান শহীদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ফাঁকা রেজুলেশনে স্বাক্ষর নেওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়। ওই পাঁচ কাউন্সিলর আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করে হয়রানি করছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © 2022 crimenews24.net
Design & Developed By : Anamul Rasel