1. admin@crimenews24.net : cn24 :
  2. zpsakib@gmail.com : cnews24 :
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঝিনাইদহে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে রক্ষা পেল ১৭৯টি হতদরিদ্র পরিবারের সূলভ মূল্যের চালের কার্ড শ্রীমঙ্গলে স্কুলছাত্রীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার  শারদীয় দুর্গাপূজা-২০২২ উপলক্ষে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সভা অনুষ্ঠিত সাতক্ষীরা থেকে বিদেশী পিস্তলসহ ১ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ বিমান বহরে যুক্ত হলো দ্বিতীয় কাসা-সি ২৯৫ ডব্লিউ সামরিক বিমান ক্ষমতাসীনরা জনতাকে ‘শুয়োরের বাচ্চা’ বলে : মোমিন মেহেদী চুয়াডাঙ্গায় বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করলেন পুলিশ   সুপার আব্দুল্লাহ্ আল-মামুন মৌলভীবাজারে গরিব ও মেধাবী  শিক্ষার্থীদের মাঝে  শিক্ষাবৃত্তি প্রদান  দিনাজপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  সদস্য নির্বাচিত হলেন বিপ্লব বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে মৌলভীবাজারে আলোচনা সভা ও বর্ণাঢ্য র‍্যালী

রাজশাহীতে জাল দলিলে সম্পত্তি আত্মসাৎ

কাজী এনায়েত, রাজশাহী:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৩০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

রাজশাহী জোলার পবা উপজেলার দামকুড়া ইউনিয়নের কলার টিকর এলাকায় নিজ ভাই ও বোনদের ফাঁকি জাল দলিলে বাবার সম্পত্তি আত্মসাতের ঘটনায় বোনের দায়ের করা মামলায় প্রতারক হাসান আলী রাজশাহী কারাগারে বন্দী রয়েছেন।

হাসান আলী দামকুড়া ইউনিয়নের কলার টিকর এলাকার মরহুম আবু বাককার সিদ্দিকের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর পবা উপজেলার দামকুড়া ইউনিয়নের কলার টিকর এলাকার মরহুম আবু বাককার সিদ্দিক পবা উপজেলার গোসাইপুর মৌজায় আর.এস ৯ ও ১০ নং খতিয়ানের ১৩৭, ১৩৮ ও ১০৭/১৬৩ নং দাগে মোট ২.১৫০০ একর ভিটা জমি ক্রয় করেন। যার দলিল নং ১১২৮৫, তারিখ ১৪/৭/১৯৬৪ ইং এবং দলিল নং ৮৭৫৮, তারিখ ১৩/৩/১৯৭২ ইং।তিনি জীবিত থাকা অবস্থায় তার বড় ছেলে হাসান আলী বাবার সমস্ত জমিজমা দেখাশুনা করতেন। ১১/০১/২০১০ ইং তারিখে আবু বাককার সিদ্দিক এক স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ৭ মেয়ে ওয়ারিশ রেখে মারা যান। বাবার মুত্যুর পর হাসান আলী প্রতারণা করে ২.১৫০০ একর জমি বাবাকে দাতা দেখিয়ে ১৯/৯/১৯৮০ ইং তারিখে ২৪১৪৩ নম্বরের একটি জাল দলি তৈরি করেন। ভাই ও বোনদের ফাঁকি দিতেই এই জাল দলিল তৈরি করা হয়। এরপর গত ৯/৪/২০২১ ইং তারিখে ওই দলিল খারিজের জন্য পবা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসে আবেদন করেন হাসান আলী। যার খারিজ কেস নং ১৪৩১৪/৯-১/২০-২১।

বিষয়টি জানার পর হাসান আলীর বোন (মামলার বাদী) ও ছোট ভাইয়েরা সংশ্লিষ্ট রেজিস্ট্রি অফিসে খোঁজ নিয়ে ওই দলিলের জাবেদা কপি সংগ্রহ করে তারা জানতে পারেন উক্ত ২৪১৪৩/১৯৮০ নং দলিলে দাতা মোসা: ফাতেমা বেওয়া ও মো: আব্দুল মজিদ এবং তাদের টিপ নম্বর ১৬৫৬৭ ও ১৬৫৬৮। কিন্তু বাদীর ভাইয়ের জাল দলিলে দাতার টিপ নম্বর ১৫৫১০ দেখানো হয়েছে। অথচ ১৫৫১০ নম্বরের টিপ সম্বলিত দলিলের নম্বর ২১৮১১/১৯৮০ এবং দাতা মোসা. আলিমুন্নেছা বিবি ও গ্রহিতা মো. আব্দুস সামাদ গাজী দিং এবং বিক্রীত সম্পত্তি পবা উপজেলার বিল নেপালপাড়া মৌজাধীন। এছাড়া জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী হাসান আলীর জন্ম তারিখ ২৫/১০/১৯৮২। অথচ তার বাবার দেওয়া ওই জাল দলিল সম্পাদনের তারিখ দেখানো হয়েছে ১৯/৯/১৯৮০ ইং। কাজেই জন্মের আগে বাবার নিকট হতে জমি নেওয়া বাস্তবাতা বিবর্জিত এবং চরমভাবে প্রতারণার শামিল। আসামী হাসান আলী বাবার সম্পত্তি গ্রাস করার হীন উদ্দেশ্যে জাল দলিল তৈরি করে দন্ড বিধি ৪৬৫/৪৬৭/৪৭১ ধারায় অপরাধ করেছে মর্মে তার বড় বোন জান্নাতুন নেসা বাদী হয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবি এ্যাডভোকেট আল মমিন বিল্লা বলেন, এ মামলায় গত বুধবার আসামী হাসান আলী আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের জন্য আবেদন জানালে বিজ্ঞ বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © 2022 crimenews24.net
Design & Developed By : Anamul Rasel