1. admin@crimenews24.net : crimene :
  2. zpsakib@gmail.com : sakib@2021 :
  3. crimeinvestigation.cit@gmail.com : MD ZAHID HASAN : MD ZAHID HASAN
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১২:২০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
খুলনার চাঞ্চল্যকর “আমির শেখ’’ হত্যা মামলার ২  পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ সাতক্ষীরা থেকে  দেশীয় পাইপগান ও ককটেল সাদৃশ্য বিস্ফোরকসহ ২ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ চুয়াডাঙ্গা থেকে “কিশোর গ্যাং” এর ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করছে র‌্যাব-৬ বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বাঁশখালীতে যুবক নিহত যশোর থেকে ২টি ওয়ান শুটারগানসহ ১ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ যশোর থেকে ১টি বিদেশী পিস্তল,১টি ওয়ানশুর্টারগান, ও ৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৬ দণ্ড মওকুফ করলে সাংবাদিক নির্যাতন বাড়বে : অনলাইন প্রেস ইউনিটি আলমডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছ নির্বাচনকল্পে ব্রিফিং অনুষ্ঠিত চুয়াডাঙ্গা থেকে চোলাই মদসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬ রাত পোহালেই আলমডাঙ্গা উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে  একযোগে ৩য় ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে

জামায়াত-বিএনপি পরিবারের সন্তান পৌর মেয়র আব্বাস

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৪ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

জামায়াত-বিএনপি পরিবারের সন্তান পৌর মেয়র আব্বাসের বিষয়ে কিছু বলার নাই কারন তাঁর কাছে থেকে এমন কথা আশা করাই স্বাভাবিক এবং এই স্বাভাবিক কাজটি করেছে সে।

বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করেই পেয়েছিলেন রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সহ-সভাপতি দায়িত্ব। যখন এই চর্তুর আব্বাসের মুখোশ উন্মোচিত হয় তখন তাকে রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সহ-সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। কিন্তু চর্তুর আব্বাস মরহুম সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজউদ্দিন মোল্লার সাথে সু- সম্পর্ক তৈরি করে এক ভীতিকর সন্ত্রাসী রাজত্ব কায়েম করে কাটাখালি পৌরসভা। মেরাজ মোল্লা কে আব্বা ডাকা আব্বাস শ্যামপুর বালু মহল থেকে গড়েন অর্থের পাহাড় কাটাখালি পৌরসভার দোকানি হতে ব্যাপক চাঁদাবাজি, পশুর হাটের ইজারা,বালু মহল দখল, এলাকাবাসীর জমিদখল, মাসকাটাদিঘি বহুমুখী স্কুলের সভাপতি হয়ে নিয়োগ ব্যনিজ্যে,স্কুলের জমির জায়গায় দোকান ঘর করে বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার পাহাড় গড়েন আব্বাস।

২০১৪ সালে সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন এবং মেরাজ উদ্দিন মোল্লাহ হন বিদ্রোহী প্রার্থী সেই সময় আয়েন উদ্দিন ভাইয়ের এর জনসভায় আব্বাসউদ্দীন এর গুন্ডাবাহিনী ও তাঁর ভাই যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুর ইসলাম মানিক এর প্রত্যক্ষ সহযোগিতার বোমা হামলা হয় সেই সাথে হরিয়ান ইউনিয়নে সুগার মিলে বোমা হামলা চালায় আব্বাসের গুন্ডা বাহিনী।
বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন জয় লাভের পরই আব্বাস আবার ভোল পাল্টে এমপির সাথে সু-সম্পর্ক স্থাপন করে তাঁর ক্ষমতা প্রতিপত্তি বজায় রাখে।

২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান পৌর আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি কিন্তু আব্বাস বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন এবং আওয়ামী প্রার্থীকে প্রতিরোধ করার ঘোষণা দেন পরবর্তী সময়ে প্রার্থী পরিবর্তন করে আব্বাস কে নৌকা প্রার্থী করা হয় এবং কেন্দ্র দখল সহ ব্যাপক ভীতিকর সন্ত্রাসী রাজত্ব কায়েম করে কাটাখালি পৌরসভার মেয়র হন আব্বাসউদ্দীন।

আরিফুর ইসলাম মানিক ২০১৪ সালের ১৫ই নভেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক শফিউল আলম লিলেন স্যার কে হত্যা করে কাটাখালি পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্বাস এর ভাই আরিফুল ইসলাম মানিক পরবর্তী আদালতে রায়ে মানিক কে আদালত সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদন্ড প্রদান করে।
সরকারি কোন নিয়ম নীতিমালা তোয়াক্কা করেন না মেয়র আব্বাস জলাবদ্ধতা নিরসনে তৈরি খালের উপর তৈরি করেন দোকান ঘর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভূমি কমিশনার সহ জেলা প্রশাসক থেকে নিষেধ করার পর ও দোকান ঘর তৈরি অব্যাহত রাখে এবং দোকান বরাদ্দ করে কোটি টাকা আয় করে।

খড়খড়ি বাইপাসের সবজি বাজারঃ- আব্বাস শুধু কাটাখালি পৌরসভায় তাঁর রাজত্ব কায়েম করেন নি খড়খড়ী বাইপাস সড়কে বাজারটি নামমাত্র মুল্যে ইজারা নিয়ে (যদি ইজারা বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তি আছে)কয়েকটি সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে প্রতিদিন ৫০-৬০ হাজার টাকা হাসিল করেন তাঁর সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে। যদি ও এই জায়গাটি ইজারা দেওয়ার কোন এখতিয়ার নেই জেলা প্রশাসকের কারন প্রকৃত হাটটি বাইপাস সড়ক থেকে ৩০০ মিটার দক্ষিনে।খড়খড়ি হাট টি সপ্তাহে দুই দিন বসতো আর বাইপাসের বাজারটি প্রতিদিনই বসে।আগে প্রতিজন বিক্রেতা থেকে ১০ টাকা হাসিল করা হলেও এখন ১০০ টাকা পর্যন্ত হাসিল করা হয় অস্ত্রের মুখে। এই বাজারটি হতে প্রতিদিন ৫০ হাজার -৬০ হাজার টাকা হাসিল করা হয়।

হরিয়ান রেলস্টেশন এর জায়গা দখল করে তৈরি করেন পশুর হাট।

বালুমহল নিয়ে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টুর সাথে দ্বন্দ্ব শুরু হয় এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ এর সাথে বালুমহল নিয়ে গুলাগুলি হয় এবং একজন নিহত হয় এতে।

২০২০ সালের ২৬শে আগষ্ট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয় স্থানীয় আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ সহ সর্বস্থরের নেতাকর্মীবৃদ্ব কিন্তু কোন এক অদৃশ্য কারনে এবং অদৃশ্য শক্তির দ্বারা পূনরায় আওয়ামী লীগের টিকিট পায় মেয়র আব্বাস।

পৌরসভা এলাকায় জনগনের মতে বিপুল অর্থের বিনিময়ে (আনুমানিক ৬কোটি টাকায়)মেয়র পদে নৌকার মাঝি হয়।

শুধু তায় নয় রাজশাহী খড়খড়ি বাইপাসের অধিপত্যে সুসংগঠিত করার জন্য তাঁর শাশুড়ী কে গতবার ও ইউপি চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী করে বিপুল ভোটে পরাজিত হয় আগামী ২৮শে নভেম্বর আবারও কোন এক অজানা কারনে জন বিচ্ছিন্ন আব্বাসউদ্দীন এর শাশুড়ী নৌকা প্রার্থী হতে সমর্থ হয়,এবং এবার ও বিপুল ভরাডুবি হবে বলে শোনা যাচ্ছে স্থানীয় জনগণ।

আর সেই কারনে ২২ তাং এক পথসভায় মেয়র আব্বাস হুমকি দিয়ে বলেন যে কোন মূল্য নৌকার বিজয় নিশ্চিত করা হবে যা জনমনে বিরূপ ধারণা জন্মদিছে।
এখন ২৮ শে নভেম্বর পারিলা ইউনিয়নে এই ঘটনার পর আব্বাস উদ্দিন তাঁর শাশুড়ীর পক্ষে কি ভূমিকা রাখতে পারে সেদিকে চেয়ে আছে পৌর ও পারিলা ইউনিয়নের এলাকাবাসী।

পরিশেষে বলতে পারি আগাছা যেমন কৃষকের ফসল নষ্ট করে পুরো ফসলকে আগাছায় রুপান্তরিত করে ফেলে,তেমনি আব্বাসদের মত মুখোশধারী শয়তানরা পুরো আওয়ামী লীগের ফসল গুলোকে আগাছায় পরিপূর্ণ করে দিতে সিদ্ধহস্তে তাদের উদ্দেশ্য চালিয়ে যাচ্ছে।

তাই বঙ্গবন্ধুর চিন্তা চেতনা লালন কারী সকলেরই উচিৎ আব্বাসদের মত আগাছা গুলো চিরতরে উপড়ে ফেলে আওয়ামী লীগ কে রক্ষা করা।
“জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু”

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

  1. © All rights reserved © 2021 crimenews24.net
Design & Developed BY Lalon Shah Web Host